রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট: 10655 , স্বাস্থ্য বাতায়ন : 16263 , জাতীয় কল সেন্টার: 333 , বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন (BSMMU) : 096116 77777

আপনি কীভাবে নিজেকে নিরাপদ রাখবেন?

এখনো করোনাভাইরাসের কোন ভ্যাকসিন আবিষ্কৃত হয়নি,  তাই প্রতিরোধই একমাত্র উপায়।  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিস্তর তথ্য এবং উপদেশ দিচ্ছেন।  বিশ্ব মহামারী বা প্যানডেমিক রোগটি থেকে নিজেকে যেভাবে নিরাপদ রাখতে পারেন :

  • ঘন ঘন হাত পরিষ্কার করুন (সাবান-পানি অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে) ।
  • কাশি শিষ্টাচার মেনে চলুন। হাচি-কাশি দেয়ার সময় টিস্যু দিয়ে বা বাহুর ভাঁজে নাক-মুখ ঢেকে রাখুন, সাথে সাথে ঢাকনা যুক্ত পাত্রে টিস্যু ফেলে দিন এবং হাত
    পরিস্কার করে ফেলুন ।
  • যতদূর সম্ভব চোখে-নাকে-মুখে হাত দিয়ে স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন ।
  • আপনার যদি জ্বর/ কাশি/ শ্বাসকষ্ট থাকে তবে সুস্থ ব্যক্তিদের কাছ থেকে দূরে থাকুন । আপনার বা আপনার সন্তানের জ্বর, কাশি বা শ্বাসকষ্ট হলে দ্রুত চিকিৎসা সেবা নিন ।
  • এই রোগ মানুষ থেকে মানুষে ছড়াতে পারে, উপদ্রুত এলাকায় ভ্রমণের সময় যে কেউ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। সুতরাং একান্ত অত্যাবশ্যকীয় কারণ ছাড়া কোভিড-১৯ সংক্রামণের প্রাদুর্ভাব চলছে এমন দেশে /এলাকা ভ্রমণ এড়িয়ে চলুন। লকডাউন চলাকালীন জরুরি প্রয়োজনে বাহিরে যেতে হলে মাস্ক ব্যবহার করুন।
সঠিকভাবে হাত ধোয়ার অন্যতম উপায় ?
  1. প্রবাহমান পানিতে হাত ভেজানো;
  2.  ভেজা হাতে পর্যাপ্ত পরিমান সাবান ব্যবহার করা;
  3.  হাতের পেছনের অংশ, আঙ্গুলের মধ্যের অংশ এবং নখের নিচের অংশসহ হাতের সব অংশই অন্ততপক্ষে ২০ সেকেন্ড ভালোভাবে ধুয়ে ফেলা;
  4. প্রবাহমান পানিতে ভালভাবে কচলে হাত ধোয়া;
  5. একটি পরিষ্কার কাপড় বা এককভাবে ব্যবহার করেন এমন তোয়ালে দিয়ে হাত ভালোভাবে মুছে ফেলা।

আপনার হাত ঘন ঘন ধুবেন। বিশেষ করে, খাবার আগে, নাক পরিস্কার করার পর, কাশি বা হাঁচি দেওয়ার পর এবং বাথরুমে যাওয়ার পরেও। সাবান ও পানি যদি সহজে পাওয়া না যায়, সেক্ষেত্রে কমপক্ষে ৬০ শতাংশ অ্যালকোহল রয়েছে এমন অ্যালকোহলভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন। যদি হাতে ময়লা থাকে, তবে সব সময় সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন।

Share this:

Like Loading...
%d bloggers like this: